Nature Dimensi HD P
কবিতা, দর্শন

একাত্মতা ২

আত্মোপলব্ধি ঘটাতে পারে বিশাল বিপ্লব
প্রগতি ও প্রশান্তির পথে
সাফল্যে ও প্রাচুর্যের পথে
সমৃদ্ধি ও শান্তির পথে

ব্যক্তির আত্মোপলব্ধি
সামষ্টিক রূপ নিয়ে
বদলাতে পারে এই বিশ্ব

যখন নিজেকে সমর্পণ করছ প্রকৃতির কাছে
পুরোপুরি
শর্তহীনভাবে
কোনোরকম পুরস্কার কিংবা প্রাপ্তির আকাঙ্ক্ষা ছাড়াই
তখনই এক মহাজাগতিক শক্তির প্রাবল্যে
বাস্তব রূপ নেবে চিন্তাসকল

Standard
অন্যান্য

ভালবাসার ম্যানিফেস্টো

১.
আমি জানি সকল প্রচেষ্টায় ভালবাসাই সাফল্যের গোপন রহস্য। মাংসপেশির শক্তি ভাঙতে পারে বর্ম এবং ধ্বংস করতে পারে জীবন কিন্তু কেবল ভালবাসার অদেখা শক্তিই পারে মানুষের হৃদয়কে উন্মুক্ত করতে এবং যতদিন না আমি এই শক্তিকে ব্যবহার করার বিদ্যা সম্পূর্ন আয়ত্ত্ব করতে পারছি ততদিন আমি সামান্য হয়েই থাকব। তাই আমি ভালবাসাকে আমার সবচেয়ে মোক্ষম অস্ত্র হিসেবে ব্যবহার করব এবং যার বিপক্ষেই এটি ব্যবহার করি না কেন সে ভালবাসার শক্তির বিরুদ্ধে প্রতিরোধ গড়ে তুলতে পারবে না।
 
২.
অন্যরা আমার যুক্তিকে খন্ডন করতে পারে; আমার বাগ্মিতাকে অবিশ্বাস করতে পারে; আমার আবেদনকে প্রত্যাখ্যান করতে পারে; আমার চেহারাকে পাত্তা নাও দিতে পারে, আমার দরকষাকষি তাদের মধ্যে সন্দেহের উদ্রেক করতে পারে; তবু আমার ভালবাসা সকলের হৃদয়কে গলিয়ে দেবে, সূর্যের রশ্মি যেমন গলায় শীতলতম মাটিকেও।
 
৩.
আজ থেকে আমি সবকিছুকে ভালবাসার দৃষ্টিতে দেখব এবং এভাবেই আমার নূতন জন্ম হবে। আমি সূর্যকে ভালবাসব, কারণ এটি উত্তাপ দিয়ে আমাকে উষ্ঞ রাখে; তারপরও আমি বৃষ্টিকে ভালবাসব কারণ এটি আমার আত্মাকে পরিষ্কার করে। আমি আলোকে ভালবাসব, কারণ এটি আমাকে পথ দেখায়; তারপরও আমি অন্ধকারকে ভালবাসব, কারণ এটি আমাকে দেখায় আকাশের তারা। আমি সুখকে স্বাগত জানাব কারণ এটি হৃদয়কে প্রসারিত করে, তবু আমি দু:খকে সহ্য করব কারণ এটি আমার আত্মাকে উন্মুক্ত করে। আমার প্রাপ্য হিসেবে পুরস্কারকে আমি গ্রহণ করব; তবে পথের বাধাসমূহকেও আমি গ্রহণ করব সানন্দে যা আমাকে মুখোমুখি করে দিয়েছে বাধা অতিক্রমের।
 
৪.
আমার শত্রুর প্রশংসা করব আমি, তাতে তারা পরিণত হবে বন্ধুতে; আমি উৎসাহ যোগাব বন্ধুদের, তারা পরিণত হবে আমার ভাইয়ে। সবসময় আমি প্রশংসা করার কারণ খুঁজব; কখনোই সমালোচনার ছুঁতো খুঁজব না। কখনো সমালোচনা করতে উদ্যত হলে কামড় দেব নিজের জিহ্বায়; এরপর প্রশংসা করতে গেলে আমি বলব তা চিৎকার করে।
 
৫.
আমি মানুষের সব আচরণকেই ভালবাসব, কারণ আমি জানি প্রত্যেকের মধ্যেই আছে কিছু সদগুনাবলী, যদিও কখনো কখনো তা থাকে লুক্কায়িত। ভালবাসা দিয়ে সন্দেহ ও ঘৃণার দেয়ালকে ভেঙে ফেলব যা তারা গড়ে তুলেছে তাদের হৃদয়ের চারপাশে, সেইস্থানে আমি গড়ে তুলব এক সেতু যার মাধ্যমে আমার ভালবাসা পৌঁছাতে পারে তাদের হৃদয়ে।
 
৬.
আমি ভালবাসব উচ্চাকাঙ্ক্ষীকে, কারণ সে আমাকে অনুপ্রাণিত করে; আমি ভালবাসব ব্যর্থ মানুষকেও, কারণ তাকে দেখে আমি শিখতে পারি। আমি রাজাদের ভালবাসব, কারণ তারাও মানুষ; আমি ভীরুদের ভালবাসব কারণ তারা স্বর্গীয়। আমি ধনীদের ভালবাসব, কারণ এত থেকেও তারা একাকী; আমি গরীবদের ভালবাসব কারণ তারা সংখ্যায় অধিক। আমি তরুণদের ভালবাসব তাদের নূতন বিশ্বাসের জন্য; আমি বয়স্কদের ভালবাসব তাদের প্রজ্ঞার জন্য। আমি সুন্দরকে ভালবাসব তাদের চোখের কোণে লুকানো বেদনার জন্য; আমি কুৎসিতকে ভালবাসব তাদের আত্মার শান্তির জন্য।
 
৬.
আমি অন্যের আচরণে প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করব ভালবাসা দিয়ে। ভালবাসা আমার অস্ত্র যা দিয়ে আমি জয় করতে পারি অন্যকে, তেমনি ভালবাসা আমার বর্ম যার মাধ্যমে নিজেকে রক্ষা করব অন্যের ঘৃণা ও রাগের তীর থেকে। হতাশা এবং কষ্ট আমাকে করতে পারবে না আঘাত; আমার ভালবাসার বর্মে এসে তা ঝরে পড়বে কোমল বৃষ্টি হয়ে। আমার এই নূতন বর্ম আমাকে রক্ষা করবে সর্বক্ষণ এবং আমাকে রক্ষা করবে যখন একাকী। সাময়িক হতাশার সময় এটি আমাকে উজ্জীবিত করবে, আর অতি আত্মবিশ্বাসের সময় এটি আমাকে শান্ত করবে। প্রতিদিন ব্যবহারে এই বর্ম আরো শক্তিশালী হবে এবং এটি আরো বেশি প্রতিরক্ষা দেবে। তারপর একদিন আসবে যখন আমি কোনো বর্ম ছাড়াই হেঁটে যাব এবং সকল স্তরের লোক আমাকে ভালবেসে অভিবাদন জানাবে, সেইদিনই আমি হবো এক মহান মানুষ।
 
৬.
যার সংস্পর্শেই আসি না কেন নীরবে এবং নিজের প্রতি বলব তাকে উদ্দেশ্য করে, ‘আমি ভালবাসি তোমাকে।’ নীরবে বললেও এই কথাগুলো চকচক করবে আমার চোখে, ফুটে উঠবে আমার চোখের ভ্রুতে, হাসি আনবে আমার ঠোঁটে, এবং প্রতিধ্বনি তুলবে আমার কণ্ঠস্বরে; এবং এভাবেই তার হৃদয় হবে উন্মুক্ত। আর আমার ভালবাসা অনুভব করার পর কেইবা না বলতে পারবে?
 
৭.
সর্বোপরি আমি ভালবাসব নিজেকে। কারণ তা করতে পারলে আমি যত্নবান হবো আমার প্রতি, যাচাই করে দেখব কী ঢুকছে আমার শরীরে, আমার মনে, আমার আত্মায় এবং আমার হৃদয়ে। আমি কখনোই আমার দেহের চাহিদায় উন্মাদ হবো না, বরং আমি দেহের পবিত্রতার দিকে নজর দেব, সংযম পালন করব। কখনোই আমার মনকে দুষ্ট ও হতাশার দিকে আকৃষ্ট হতে দেব না; বরং আমি মনকে উজ্জীবিত করব সহস্র বছরের জ্ঞান ও প্রজ্ঞায়। আমার আত্মাকে কখনো হতে দেব না অহংকারী; বরং আমি একে শান্ত করব ধ্যান ও প্রার্থনায়। আমার হৃদয়কে হতে দেব না ক্ষুদ্র ও তিক্ত, বরং এটিকে আমি ভাগ করে নেব অন্যদের সাথে, তাতেই বাড়বে হৃদয়ের প্রশস্ততা এবং ছড়াবে উষ্ঞতা এই পৃথিবীতে।
 
৮.
আমি ভালবাসব সব মানুষকে। এই মুহূর্ত থেকে আমার ধমনী দিয়ে বেরিয়ে যাবে সমস্ত ঘৃণা, কারণ আমার সময় নেই ঘৃণা করার; আমার সময় আছে কেবল ভালবাসবার। এই মুহূর্ত থেকে আমি প্রথম কাজটি করছি অনেক মানুষের মধ্যে নিজেকে বিশেষ মানুষ হিসেবে গড়ে তোলার জন্য। ভালবাসা দিয়ে আমি বাড়াব আমার সমৃদ্ধি। আমার অন্য কোনো গুণ না থাকলেও কেবল ভালবাসা দিয়ে সফল হবো আমি। আর এই ভালবাসা না থাকলে আর সকল জ্ঞান ও দক্ষতা নিয়েও ব্যর্থ হবো আমি।
 
৯.
আমি প্রতিটি দিনকে, প্রতিটি মানুষকে অভিনন্দিত করব হৃদয়ের ভালবাসা দিয়ে।
Standard
Free Good Morning Rising Sun Images
কবিতা, দর্শন

একাত্মতা -১

প্রকৃতির কাছে আত্মসমর্পণে
দেখতে পাবে জগৎকে ভিন্ন দৃষ্টিতে
সঙ্কীর্ণ চিন্তার বদলে দেখতে পাবে বৈশ্বিক রূপ
আর তখনই বুঝতে পারবে
তুমি এক গুরুত্বপূর্ণ ক্রীড়নক
এই মহাবিশ্বে
প্রতিটি অনু ও পরমাণুতে
প্রতিটি গ্রহ নক্ষত্রের গতি ও ঘূর্ণনে

তখনই অনুভব করবে সেই শক্তির প্রাবল্য
যা অসীম, অনন্ত
সময়, অপরিসীম
সৃষ্টির আদি ও অন্ত

অতীত, বর্তমান, ভবিষ্যৎ
জৈবিক ও অজৈবিক সৃষ্টি
কর্ম ও ফল
আবেগ, নিরাবেগ
রাগ ক্রোধ ভালবাসা

সীমাবদ্ধ সময় থেকে শুরু হয় পরিভ্রমণ
অনন্তের পথে
ভেঙে সব নিয়ম
পদার্থবিদ্যা
গতিবিদ্যা
আপেক্ষিকতার

ক্রমশ দীর্ঘ পথ
প্রবহমান জীবনের ধারা
জন্ম ও মৃত্যুর বাইরে
প্রকৃতির সাথে
পুরোপুরি একাত্ম হয়ে
অনুভব করবে সেই শক্তি
যা ধ্বংস করতে পারে এই পৃথিবী
সৃষ্টি করতে পারে এই মহাবিশ্ব

Standard
Free THE ROAD AHEAD Stock Images - Download The Free THE ROAD AHEAD Stock Images - Download Free Screensavers, Free Stock Images, Play Free Games and Send Free eCards
দর্শন

আমার দু:খের জন্মের সময়

আমার দু:খের জন্ম হলে আমি তার যত্ন নিলাম, তার দিকে তাকালাম পরম মমতায়।

আমার দু:খ বেড়ে উঠল অন্যান্য জীবের মতো, হয়ে উঠল শক্ত ও সুন্দর, আর অদ্ভূত ভাললাগায়।

আমরা একে অপরকে ভালবাসলাম, আমার দু:খ আর আমি, আমাদের চারপাশের সবকিছুকে একসাথে ভালবাসলাম; আমার প্রতি দু:খের মমতা, আমার দু:খের প্রতি আমার মমতার কমতি ছিল না।

এবং আমরা যখন পরস্পরের সাথে কথা বলতাম তখন আমাদের দিন ও রাত্রি ভরে উঠত অদ্ভুত স্বপ্নে; আমার দু:খের ছিল এক বাক্যবাগীশ জিহ্বা, আর আমারও তেমনি ছিল দু:খের প্রতি।

আর আমরা যখন একসাথে গান গাইলাম, আমার দু:খ ও আমি, আমার প্রতিবেশিরা জানালার পাশে বসে শুনল সেই গান; কারণ আমাদের এই গান ছিল সমুদ্রের মতো গভীর আর সুর ছিল অসামান্য স্মৃতিময়।

আর আমরা যখন একসাথে হাঁটতাম, আমার দু:খ ও আমি, লোকজন তাকাত করুণভাবে, মমতায়, আর মধুর স্বরে ফিসফিস করত নিজেরাই। কেউ কেউ হিংসে করত, মনে হতো দু:খ এক মহান জিনিস, আর আমি গর্বিত এই দু:খকে পেয়ে।

কিন্তু একদিন আমার দু:খ গেল মরে, সকল জীব যেমন মরে; আমি একা নিস্তব্ধ, নিথর – চিন্তায় লীন রইলাম পড়ে।

এখন আমি কথা বলতে গেলেই শব্দগুলো ভারী পাথরের মতো চাপা দেয় আমাকেই।

আর যখন গান গাই, প্রতিবেশিরা আসে না শুনতে তা মোটেও।

যখন হাঁটি রাস্তায়, তাকায় না কেউ আমার দিকে।

ঘুমের মধ্যে কেবল শুনি, কেউ কেউ করুণা করে বলছে, “ওই দ্যাখো, সেই লোক, যার দু:খ গেছে মরে।”

Standard
Nature Dimensi HD P
অন্যান্য

কাকতাড়ুয়া / কাহলিল জিবরান

একদিন এক কাকতাড়ুয়াকে বললাম, “এই একাকী প্রান্তরে দাঁড়িয়ে থাকতে নিশ্চয় তুমি ক্লান্ত হয়ে গেছ।”

কাকতাড়ুয়া বলল, “অন্যকে ভয় দেখানোর আনন্দ অনেক গভীর ও দীর্ঘস্থায়ী, তাই আমি এটি করতে ক্লান্ত হই না।”

এক মিনিট চিন্তা করে বললাম, “সত্য বটে, আমিও পেয়েছি এই আনন্দ।”

সে বলল, “তাদের অভ্যন্তরে গাদা আছে খড় তারাই শুধু বুঝতে পারে এটা।”

সে আমার প্রশংসা করল নাকি বিদ্রুপ সেটি বুঝতে না পেরে আমি চলে আসলাম।

এক বছর চলে গেছে, এর মধ্যে কাকতাড়ুয়া পরিণত হয়েছে দার্শনিকে।

এবার আবার যখন তার পাশ দিয়ে যাচ্ছি, তখন দেখি দুটি কাক বাসা বেঁধেছে তার টুপির নিচে।

Standard
Nature Dimensi HD P
অন্যান্য

জ্যোতির্বিদ / কাহলিল জিবরান

মন্দিরের ছায়ায় আমি ও আমার বন্ধু দেখতে পেলাম এক অন্ধকে, বসে আছে নির্জনে। বললেন বন্ধুটি, “এই দ্যাখো, সবচেয়ে বিজ্ঞ লোক আমাদের এই ভূমিতে।”

বন্ধুটিকে ছেড়ে আমি গেলাম সেই অন্ধের কাছে, করলাম সম্ভাষণ। তারপর চলল কিছু কথাবার্তা।

কিছুক্ষণ পরে জিজ্ঞেস করলাম, “মাফ করবেন, বলবেন কি আপনি অন্ধ ঠিক কখন থেকে?”

“জন্ম থেকে,” বললেন তিনি।

বললাম আমি, “জ্ঞানের কোন পথ আপনি করেছেন অনুসরণ?”

বললেন তিনি, “আমি একজন জ্যোতির্বিদ।”

এরপর তিনি তাঁর হাতটি নিয়ে গেলেন বুকে, ইশারায় হৃদয় দেখিয়ে বললেন, “সূর্য, চন্দ্র আর নক্ষত্র সব আমি দেখি এইখানে।”

Standard
Nature Dimensi HD P
অন্যান্য

পাগল / কাহলিল জিবরান

তোমরা জানতে চাও আমি কীভাবে পাগল হলাম। ঘটনাটি এই: একদিন, অনেক দেবতার জন্মের আগে, আমি জেগে উঠি এক গভীর নিদ্রা থেকে, আর দেখি আমার সব মুখোশ চুরি হয়ে গেছে – সাতটি মুখোশ যা আমি পরিধান করেছি সাতটি জীবনে, তাই চিৎকার করতে করতে মুখোশহীন আমি ছুটে চললাম জনাকীর্ন সড়কে, “চোর, সব চোর, সব অভিশপ্ত চোর”।

নর ও নারীরা আমাকে পরিহাস করল, আর কেউ কেউ ভয়ে পেয়ে ঢুকে গেল তাদের বাড়িতে।

তারপর আমি পৌঁছে গেলাম এক বাজারে, ছাদের উপরে দাঁড়ানো এক যুবক চিৎকার করে বলল, “ও একটা পাগল”। আমি উপরে তাকালাম তাকে দেখতে; আর প্রথমবার সূর্য চুম্বন করল আমার নগ্ন মুখমন্ডল। প্রথমবার আমার নগ্ন মুখমন্ডলকে সূর্য চুমু খেতেই আমার আত্মা প্রজ্জ্বলিত হলো সূর্যের প্রতি ভালবাসায়, এরপর আমি আর আমার মুখোশ চাইনি পেতে ফিরে। তৎক্ষনাৎ চিৎকার করে উঠলাম আমি, ‘আশীর্বাদ, আশীর্বাদ সেইসব চোরদের জন্য যা করেছে চুরি আমার মুখোশসব’।

এভাবেই আমি হলাম পাগল।

এবং তারপর থেকেই আমি খুঁজে পেয়েছি নি:সঙ্গতার স্বাধীনতা এবং আমাকে না বোঝার নিরাপত্তা, কারণ কেউ আমাদের বুঝতে পারলে আমাদের মাঝে গেঁথে দেয় কিছু দাসত্ব।

তবে আমি করতে চাইনা অহঙ্কার আমার নিরাপত্তার। কারাগারে নিবদ্ধ এক চোরও আরেক চোরের থেকে নিরাপদ।

Standard